চোখের কালো দাগ দূর করার সহজ উপায় !

0
Loading...

শশা আমাদের দেহের পানির অভাব পূরণ করে থাকে। কারণ, শশার খাদ্য উপাদানের মধ্যে ৯০ ভাগই হচ্ছে পানি। আমরা যদি দৈনিক চাহিদার সমপরিমাণ পানি পান করতে না পারি তাহলে শশা খেয়ে পানির সেই অভাব পূরণ করা সম্ভব।

শশা কালো দাগ দুর করে এটা সঠিক ধারণা নয়। শশাতে অনেক পানি আছে ,আর এর ফাইবার পানি অনেকক্ষণ এক জায়গায় ধরে রাখতে পারে। শসা যা করে চেহারায় একটা সজীব ভাব নিয়ে আসে।

আমাদের দেহের সবচেয়ে সংবেদনশীল অঙ্গের একটি হলো চোখ , সামান্য পানি স্বল্পতার সৃষ্টি হলে চোখের নীচের অংশ বসে যায়। শসা দিয়ে রাখলে সেখানে একটা সতেজ ভাব আসে। রূপচর্চায় শশা কিছু গুনাগুন নিচে তুলে ধরা হলঃ

তাছারা শশা হচ্ছে সালাদের মধ্যে বহুল ব্যবহৃত একটি সবজি। সহজলভ্য এবং সুলভ এই সবজিটির ব্যবহার শুধু সালাদের মধ্যেই কিন্তু সীমাবদ্ধ নয়। স্বাস্থ্যরক্ষার পাশাপাশি শশা আমাদের ত্বক এবং চুলের জন্যও সমানভাবে উপকারী। লো ক্যালরি এবং ডায়েট্রি ফাইবারে সমৃদ্ধ এই সবজিটি তাই স্থান করে নিয়েছে রূপসচেতন নারীদের ডায়েট চার্টে। এবার আসুন তাহলে জেনে নেয়া যাক শশার বিভিন্ন গুণাগুন এবং ব্যবহার সম্পর্কে।

– তৈলাক্ত ত্বকের জন্য শশা খুব ভালো টোনার হিসেবে কাজ করে। এটি ত্বকের ওপেন পোর কন্ট্রোল করতে বেশ উপকারী। মুখ ধোয়ার পর শুধু শশার রস টোনার হিসেবে মুখে লাগাতে পারেন অথবা একে আরো কার্যকরী করতে শশার রসের সাথে আপেল সাইডার ভিনেগার, টমেটোর রস এবং এলভেরা জেল মিশিয়ে নিতে পারেন।

– শশাতে থাকা ব্লিচিং প্রপার্টিজ ত্বকের রোদে পোড়া ভাব দূর করে ত্বক উজ্জ্বল এবং স্কিন টোন সমান করে। বাইরে থেকে এসে মুখ ধুয়ে শশার রস লাগান। এটি সান বার্ন দূর করবে।

বিঃ দ্রঃ প্রতিদিন মজার মজার রান্নাকরার অসাধারন সব রেসিপি এবং রুপ লাবণ্য টিপস আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে আমাদের দুটি পেজ লাইক দিন!

রান্নাকরার অসাধারন সব রেসিপি

মজার রেসিপি/ রুপ লাবণ্য

Share.
[X]