সত্যিই বিপিএলে অংশ নিতে আগ্রহী তারা!

0
Loading...

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) পুরনো অভিজ্ঞতার কারণে এবার তৃতীয় আসরে অংশ নিতে আগ্রহী প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে এক কোটি টাকা পে-অর্ডার এবং সাড়ে চার কোটি টাকা ব্যাংক গ্যারান্টি জমা দেওয়ার শর্ত দিয়েছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। সে শর্তমতে নতুন ১১টি প্রতিষ্ঠান বিপিএলে দল কেনার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেছে বলেও জানিয়েছে বিসিবি।

কিন্তু, এখন জানা যাচ্ছে, বিসিবির শর্ত মেনে পে-অর্ডার এবং ব্যাংক গ্যারান্টি জমা দিয়েছেন মাত্র দুটি প্রতিষ্ঠান। প্রশ্ন হলো, বাকি ৯টি প্রতিষ্ঠানে বিপিএলে অংশ নেওয়ার আগ্রহ নিয়ে। যদিও, পে-অর্ডার এবং ব্যাংক গ্যারান্টি জমা দেওয়ার জন্য আরও একদিন সময় পাচ্ছে সেই প্রতিষ্ঠানগুলো।

বিপিএলে দল কিনতে নতুন অনেক প্রতিষ্ঠানের আগ্রহ এবং পুরানো কয়েকটি ফ্র্যাঞ্জাইজির ফেরার সম্ভাবনা দেখে স্বয়ং বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এবার ফ্র্যাঞ্জাইজি বাড়ানোর কথা জানিয়েছিলেন। কিন্তু, বিসিবির শর্ত মেনে পে-অর্ডার আর ব্যাংক গ্যারান্টি জমা দেওয়ার পরিস্থিতি দেখে- বোঝাই যাচ্ছে, আগের ৭ ফ্রাঞ্চাইজির জন্য যোগ্য আগ্রহী প্রতিষ্ঠানেরই অভাব দেখা দিতে পারে।

বিসিবির দেয়া শর্ত মেনে শনিবার পর্যন্ত নতুন ও পুরানো মিলে পে-অর্ডার এবং ব্যাংক গ্যারান্টি জমা দিয়েছে মাত্র চার প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে বকেয়া আদায়কারী পুরনো দুটি প্রতিষ্ঠানও রয়েছে। দল দুটি সিলেট রয়্যালস এবং রংপুর রাইডার্স। তবে এর মধ্যেও কিন্তু রয়ে গেছে। সিলেট রয়্যালস তাদের আগের বকেয়া এবং নতুন শর্ত সব পূরন করেছে। বিপরীতে রংপুর রাইডার্স শুধু তাদের পুরানো বকেয়াই পরিশোধ করেছে, পে-অর্ডার কিংবা ব্যাংক গ্যারান্টি জমা দেয়নি। নতুন প্রতিষ্ঠানের মধ্যে যে দুটি প্রতিষ্ঠান পে-অর্ডার ও ব্যাংক গ্যারান্টি জমা দিয়েছে তারা হচ্ছে- ডিবিএল ব্রাদার্স ও এক্সিওম টেকনোলজি ।

নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পাওনা পরিশোধ করেছে কেবল সিলেট রয়্যালস ও রংপুর রাইডার্স। বারবার চিঠি দেওয়ার পরও সিলেট আর রংপুরছাড়া পাওনা পরিশোধ না করায় বিপিএলের আগের দলগুলোর ফ্র্যাঞ্চাইজি বাতিল করে দিয়েছে বিসিবি। নতুন করে ‘এক্সপ্রেশনস অব ইন্টারেস্ট’ আহবান করার পরও পুরোনোদের সুযোগ দেওয়া হয়েছিল।  তাদের জন্য ২৭ আগস্ট পর্যন্ত সময় বেধে দিয়ে ‘এক্সপ্রেশন্স অব ইন্টারেস্ট’-এ অংশ নেওয়ার সুযোগ করে দিয়েছিল বিসিবি।

শনিবার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে বিসিবি পরিচালক ও মিডিয়া কমিটির প্রধান জালাল ইউনুস জানান, বেঁধে  দেওয়া সময়ের মধ্যে পাওনা পরিশোধ করেছে শুধু দুটি পুরানো ফ্র্যাঞ্চাইজি। রোববার নতুনদেরও শর্ত পূরণের সময় সীমা শেষ হয়ে যাচ্ছে। পুরনোদের সময় শেষ হয়েছে গত ২৭ আগস্ট। আগের কয়েকটি ফ্র্যাঞ্চাইজি কিস্তির মাধ্যমে বকেয়া পরিশোধ করতে চেয়েছিল। কিন্তু তাদের শর্তে রাজি হয়নি বিসিবি। আগের ফ্র্যাঞ্চাইজিদের আর নতুন করে সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনা নেই।

বিসিবির মিডিয়ার কমিটির প্রধান জালাল ইউনুস বলেন, ‘আজ (শনিবার) পর্যন্ত  সিলেট রয়্যালস নতুন ও পুরনো সব হিসাব জমা দিয়েছে। তাদের সব পরিস্কার। আর রংপুর রাইডার্স শুধু পুরনো বকেয়া জমা দিয়েছে। নতুনদের মধ্যে ডিবিএল ব্রাদার্স ও এক্সিওম টেকনোলজি তারা নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজির জন্য প্রাথমিক শর্ত ব্যাংক গ্যারান্টি এবং পে অর্ডার জমা দিয়েছে।’

বিপিএলের তৃতীয় আসরে ফ্র্যাঞ্জাইজি হতে হলে বিসিবির প্রাথমিক শর্ত এক কোটি টাকার পে-অর্ডার ও সাড়ে চার কোটি টাকার খেলোয়াড় পেমেন্ট হিসেবে ব্যাংক গ্যারান্টি জমা দিতে হবে। তবে, ফ্র্যাঞ্জাইজি হওয়ার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করা দুটি প্রতিষ্ঠান দাবি করেছে তারা যে টাকা দেবে তার কোনো সঠিক গাইড লাইন পায়নি।

তবে এবার কিভাবে বিপিএল পরিচালিত হবে, তার নিয়ম-নীতিগুলো পেপারের সঙ্গে দেওয়া আছে বলে জানিয়েছেন বিসিবির মিডিয়ার কমিটির প্রধান জালাল ইউনুস। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘নতুন যারা আছে তাদের জন্য রোববার বিকেল ৫টা পর্যন্ত সুযোগ থাকছে।  যে গুলো জমা হবে সেখান থেকেই আমরা যাচাই বাছাই করবো। সভাপতির (নাজমুল হাসান) কথা মতো দল বাড়তেও পারে, আবার নাও পারে।’

তবে শনিবার পর্যন্ত নতুনদের মধ্যে মাত্র দুটি প্রতিষ্ঠান তাদের আর্থিক শর্ত পূরন করলেও বিসিবি আশা করছে শেষদিনে (রোববার) আগ্রহী প্রতিষ্ঠানের অনেকেই তাদের শর্ত পূরণ করবে।

বিপিএলের গত দুই আসরের পুরানো ফ্র্যাঞ্চাইজিদেরকে বকেয়া পরিশোধের জন্য অনেকবার সুযোগ দিয়েছিল বিসিবি। এমনকি তাদের বকেয়া পরিশোধের সর্বশেষ সময়সীমা ছিল গত বৃহস্পতিবার। এর মধ্যে অন্য কোন ফ্রাঞ্চাইজি তাদের বকেয়া পরিশোধ করতে আসেনি। ফলে পুরনোদের আর কোন সুযোগ থাকছে না বলে জানান বিসিবির মিডিয়া কমিটির প্রধান।

এ বিষয়ে জালাল ইউসুন বলেন, ‘আমি আর কোনো সুযোগ দেখছি না। কারণ ২৭ আগস্ট তাদের জন্য শেষ সময় ছিল। তারা যেহেতু আমাদের বেধে দেওয়া সময়ের মধ্যে বকেয়া পরিশোধ করেনি, তাই তাদের আর বিবেচনায় আনা হবে না। এই অবস্থান থেকে সরে আসার সুযোগ তো আমি দেখছি না।’

এদিকে চলতি মাসের শেষের দিকে বোর্ড সভা হওয়ার কথা ছিল; কিন্তু বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন দেশের বাইরে থাকায় সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে বসবে সভা। ওই সভাতে বিপিএলের তৃতীয় আসরের জন্য ফ্র্যাঞ্চাইজি বাছাই করবে বিসিবি।

বিঃ দ্রঃ প্রতিদিন মজার মজার রান্নাকরার অসাধারন সব রেসিপি এবং রুপ লাবণ্য টিপস আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে আমাদের দুটি পেজ লাইক দিন!

রান্নাকরার অসাধারন সব রেসিপি

মজার রেসিপি/ রুপ লাবণ্য

Share.
[X]