মৃত্যুর ৪০ বছর পর সন্তানের কাছে এলেন মা!

0
Loading...

সাপের কামড় খেয়ে মৃত্যুর ৪০ বছর পর নিজের দু’মেয়ের কাছে ফিরে এলেন মা! এ কথা শুনে অনেকেরই ভ্রু কুঁচকে যাবে। অবিশ্বাসে অনেকে মুখ ফিরিয়ে নেবেন।তবে অবাক হবার কিছু নেই। এটি কোনো বাংলা বা বলিউড সিনেমার কাহিনি নয়। নয় কোনো রূপকথার গল্প। একেবারে চরম বাস্তব।

১৯৭৬ সালে বিধনু গ্রামে ব্ল্যাক কোবরার কামড় খান ভালিসা নামের নারী। পরিবারের সদস্যরা তাকে মৃত ভেবে গঙ্গা নদীতে ভাসিয়ে দেন। কিন্তু কথায় আছে না রাখে ইশ্বর মারে কে, মারে ইশ্বর রাখে কে। ইশ্বরের কৃপায় বেঁচে যান ওই নারী। ঘটনাক্রমে গঙ্গার মাঝিরা তাকে উদ্ধার করে একটি মন্দিরে রেখে দেন।

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, কানপুরের ইনায়েতপুর গ্রামের বাসিন্দা ভালিসা মাঠে ঘাস কুড়াতে গেলে ব্ল্যাক কোবড়ার কামড়ে অজ্ঞান হয়ে পড়েন। সনাতনী চিকিৎসা দেয়ার পর তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। এরপর প্রথানুযায়ী তাকে কান্নাউজ জেলার সীমানা দিয়ে গঙ্গা নদীতে ভাসিয়ে দেয়া হয়। পরে সারাই থেকু এলাকার বাসিন্দারা (পেশায় মাঝি) ভালিসাকে উদ্ধার করেন।

ভালিসার দু’মেয়ে রাম কুমারি ও মুন্নি জানান, শুক্রবার ৮২ বছরের মাকে বাসার সামনে দেখে অবাক হয়েছি। মা অজ্ঞান হয়ে স্মৃতিশক্তি হারিয়ে ফেলেছিলেন। কিছুদিন আগে তিনি স্মৃতি ফিরে পাবার পর এক কিশোরীর সঙ্গে আলাপ করেন। পরে ওই কিশোরী তার চাচাকে বিষয়টি জানান। তারপর চিতা রাম (৮২) নামের লোকের সঙ্গে ওই কিশোরীর চাচা আলোচনা করেন।

৪০ বছর আগে ভালিসার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় অংশ নেয়া ব্যক্তি হলেন চিতারাম। তিনি ঘটনাটি বুঝতে পেরে ভালিসার দু’ মেয়েকে জানান। পরে জন্মদাগ দেখে বিষয়টি নিশ্চিত করেন ভালিসার বড় মেয়ে রাম কুমারী।

বিঃ দ্রঃ প্রতিদিন মজার মজার রান্নাকরার অসাধারন সব রেসিপি এবং রুপ লাবণ্য টিপস আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে আমাদের দুটি পেজ লাইক দিন!

রান্নাকরার অসাধারন সব রেসিপি

মজার রেসিপি/ রুপ লাবণ্য

Share.
[X]