মুমিনুলকে নিয়ে আত্মবিশ্বাস এবং স্বপ্নের কথা জানালেন ‘এ’ দলের কোচ হিথ স্ট্রিক

0
Loading...

তিনটি এক দিনের ম্যাচ এবং দুটি তিন দিনের ম্যাচ খেলতে মুমিনুল হকের নেতৃত্ব আজ ব্যাঙ্গালোরের উদ্দেশে রওনা করছে  বাংলাদেশ ‘এ’ দল।

সম্প্রতি বাংলাদেশের ক্রিকেটে জয়ের যে ধারা এসেছে সেটাকেই এগিয়ে নিয়ে যেতে চান এ দলের অধিনায়ক মুমিনুল। কোন চাপকে পাত্তা দেওয়ার পক্ষে নন তিনি, জানালেন, ‘এটা কোনো গলির খেলা নয়।  এ লেভেলের ক্রিকেটে এই চাপ অবশ্যই থাকবে। যদি এই চাপ নেওয়ার ক্ষমতা না থাকে তাহলে ক্রিকেট না খেলাই ভালো।  আমাদের যে জয়ের অভ্যাস তৈরি হয়েছে তা ধরে রাখতে হবে। আর আমরা এ জিনিসটা হারাতেও চাইব না। আমরা এ চিন্তা মাথায় করে নিয়ে যাব।’ নতুন অধিনায়ক হলেও জয়ের ব্যাপারে ভীষণ মরিয়া মুমিনুল, ‘আমরা পারব না কেন? আমরা যদি ভালো ক্রিকেট খেলতে পারি তাহলে অবশ্যই সিরিজ জয় সম্ভব। আমরা বেশ একটি দল নিয়ে যাচ্ছি। সব পজিশনে ভালো ক্রিকেটার আছে। দশজন টেস্ট খেলোয়াড় আছে দলে। বাংলাদেশ এখন ভালো ক্রিকেট খেলছে। আমরাও ভালো ক্রিকেট খেলব।’

এদিকে, ‘এ’ দলের কোচ হিথ স্ট্রিকের উচ্ছসিত মত। মুমিনুলকে তিনি ভবিষ্যৎ নেতা মনে করেন। টেম্পারামেন্টই নাকি মুমিনুলকে সফল নেতা হিসেবে গড়ে তুলবে। মুমিনুল নিজে অবশ্য ব্যাটিংয়ের মতো অধিনায়কত্বটাকেও উপভোগ করতে চান। এটা করতে পারলে জয়ও ধরা দেবে বলেই বিশ্বাস তার।

গতকাল মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে সংবাদ সম্মেলনে ‘এ’ দলের কোচ হিথ স্ট্রিক আত্মবিশ্বাসের সাথেই বললেন, ‘ভবিষ্যতের নেতা হবে  মুমিনুল’ । জানালেন,  ‘আমি নিশ্চিত, ভবিষ্যতে সে (মুমিনুল) বাংলাদেশ ক্রিকেটের নেতা হবে। এ সফরে নেতৃত্ব পাওয়া তার জন্য একটি পুরস্কার। আশা করছি বাংলাদেশের ক্রিকেটে ভবিষ্যৎ নেতা হিসেবে এটা তার শুরু।’

মুমিনুলের নেতৃত্ব নিয়ে কেন এতটা আশাবাদী এই কোচ ? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে , সে ব্যাখ্যাও দিলেন  স্ট্রিক, বললেন, ‘আমরা তাকে মিনি বলে ডাকি। তার ক্রিকেটমস্তিষ্ক খুবই ভালো। তার টেম্পারামেন্টও খুব ভালো, যেটা নেতৃত্বে খুব কাজে দেয়; পরিষ্কার করে ভাবতে পারে। সেটা সে প্রমাণও করেছে, বিশেষ করে টেস্টে। আর ক্রিকেটজ্ঞান ও জানাশোনার জন্য তার ক্ষুধা তীব্র।’

তবে মুমিনুল জানালেন,  সে নিজে শেখার দিকেই বেশি মনোযোগী, ‘। প্রেস ব্রিফিং এ জানালেন, ‘ ব্যাটিংটা যেভাবে উপভোগ করি অধিনায়কত্বও সেভাবে উপভোগ করব। নতুন করে অধিনায়কত্ব করব, তাই অনেক কিছুই নতুন করে  শিখতে হবে। অনেক কিছুতে কমতি থাকতে পারে, সেগুলো কাটিয়ে উঠতে হবে।’ আমার দলের সবাই পরিপকস্ফ ক্রিকেটার। অধিকাংশ ক্রিকেটার জাতীয় দলের। সবাই মিলে ভালো খেলতে পারব। তাই আমার মনে হয় ভালো কিছু হবে।’

হিথ স্ট্রিক তো সিরিজ জয়ের পাশাপাশি অস্ট্রেলিয়াকে মোকাবেলার আত্মবিশ্বাসও ভারত থেকে নিয়ে আসতে চান, ‘আমাদের তরুণদের জন্য অভিজ্ঞতা সঞ্চয়ের এটি বড় সুযোগ। পাশাপাশি জয়ের সংস্কৃতিও ধরে রাখতে চাই। জয়ের চেষ্টার পাশাপাশি ছেলেরা সে আত্মবিশ্বাসও অস্ট্র্রেলিয়া সিরিজে বয়ে নিয়ে যাবে। শুধু অনুশীলনের জন্য আমরা যাচ্ছি না। কঠিন, লড়াকু ক্রিকেট খেলব। ভারত ‘এ’ দলকে সহজে ছাড় দেব না।’ এসবের পাশাপাশি ভারত সফরে আরও একটি বিষয় নিয়ে কাজ করা হবে বলে জানিয়েছেন হিথ স্ট্রিক। তাসকিন সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে খেলছেন কেবল। এই সিরিজে তাকে তিন দিনের ম্যাচে সুযোগ দিয়ে লম্বা দৈর্ঘ্যের ম্যাচের জন্য প্রস্তুত করা হবে। সৌম্যকে তিন দিনের ম্যাচে ওপরে ব্যাটিং করানো হবে, যেন সে লম্বা দৈর্ঘ্যের ম্যাচে টপ অর্ডারে অভ্যস্ত হতে পারে। শফিউল এবং আল-আমিন বেশ কিছুদিন দৃশ্যপটে নেই। নির্বাচকদের নজর কাড়ার সুযোগ তাদের সামনেও। সব মিলিয়ে দুই সপ্তাহের ভারত সফর অনেক দিক থেকেই ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ।

বিঃ দ্রঃ প্রতিদিন মজার মজার রান্নাকরার অসাধারন সব রেসিপি এবং রুপ লাবণ্য টিপস আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে আমাদের দুটি পেজ লাইক দিন!

রান্নাকরার অসাধারন সব রেসিপি

মজার রেসিপি/ রুপ লাবণ্য

Share.
[X]